লক্ষ লক্ষ বেকার যুবকদের জন্য দুঃসংবাদ!

সরকারি চাকরিতে নিয়োগ পরীক্ষার ফি কমানো ও ফি গ্রহণের সিদ্ধান্ত বাতিলের ক্ষেত্রে আপাতত সরকারের কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।গতদিন বিকালে জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তরকালে এসএম মোস্তফা রশিদীর (খুলনা-৪) প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। সৈয়দ আশরাফ বলেন, সরকারি চাকরিতে আবেদনের ক্ষেত্রে আবেদনকারীদের কাছে থেকে পে-অর্ডার/চালান/পোস্টাল অর্ডার নেয়ার বিধান রয়েছে। কেবল বিসিএস পরীক্ষার ক্ষেত্রে অনগ্রসর নাগরিক ছাড়া সব প্রার্থীর জন্য অফেরতযোগ্য সাতশ এবং একশ টাকা নেয়া হয়।এছাড়াও ১৩-১৭ গ্রেডের পদে কর্মচারী নিয়োগের জন্য অফেরতযোগ্য একশ টাকা এবং ১৮-২০ গ্রেডের পদে কর্মচারী নিয়োগের ক্ষেত্রে অফেরতযোগ্য ৫০ টাকা ফি নেয়া হয়ে থাকে। নিয়োগ পরীক্ষার ব্যয় নির্বাহের জন্য স্বল্প পরিমাণ ফি আদায় করা হয়। তাই ফি কমানোর ক্ষেত্রে আপাতত কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানান মন্ত্রী।কিন্তু দীর্ঘ দিন থেকে চাকুরী প্রত্যাশীদের আশা ছিলো বয়স বাড়াতে হবে এবং সরকারী চাকুরী তে আবেদন ফি পুরোপুরি বাতিল কিংবা কমাতে হবে,অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য এগুলোর কোনটাই এখনো বাস্তবায়নের মুখ দেখেনি।অনেকেই প্রশ্ন করেছেন সরকার যদি বেকারভাতা না দিতে পারে তাহলে আয়কর ভাতা নিবে কেন,আর দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে একমাত্র সরকারি চাকুরীজীবিদের অবদান আছে এমনটা নয় তবে কেন একের পর এক সুযোগ শুধুমাত্র সরকারী চাকুরীজীবিরাই পাবে।

[x]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *