যেগুলোর ওপর পেশাদার জীবনের উন্নতি ও ধ্বংস নির্ভর করে

প্রফেশনাল জীবনে দক্ষতার সঙ্গে ভালো কাজ করার মাধ্যমে মানুষ সামনে এগিয়ে যায়। কিন্তু বাস্তব এ অতি সাধারণ সূত্র অনুযায়ী কাজ করে না। পেশাদার জীবনে বহু বিষয় থাকে, যার কোনো লিখিত আইন নেই। আর এসব বিষয় আপনাকে কেউ কখনো শিখিয়েও দেবে না। নিজ দায়িত্বেই শিখে নিতে হবে।
প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানেরই কর্মীদের সাফল্যের জন্য একটি সূত্র দেওয়া থাকে। এতে লেখা থাকতে পারে আপনার পেশাদার জীবন কীভাবে উন্নতি লাভ করবে। কিন্তু এসব ছাড়া কিছু বিষয় আছে, যেগুলোর ওপর পেশাদার জীবনের উন্নতি ও ধ্বংস নির্ভর করে। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফোর্বস।

career
১. অন্যদের ওপর অতিরিক্ত নির্ভর করা
আমরা প্রায়ই আমাদের নেতা ও কলিগদের ওপর সাফল্যের জন্য নির্ভর করি। আমরা ভুলে যাই যে, প্রতিষ্ঠানগুলো আমাদের সুযোগ প্রদান করেছে। এরপর সে সুযোগ ব্যবহার করে নিজের ক্যারিয়ারকে সামনে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নিজের। এক্ষেত্রে অন্যের ওপর অতিরিক্ত নির্ভর করা ক্যারিয়ার ধ্বংসের কারণ হতে পারে।
ব্যক্তিগত কিংবা পেশাদারী জীবন, উভয় ক্ষেত্রেই টিমওয়ার্ক সাফল্যের চাবিকাঠি। আর ক্যারিয়ার সামনে এগিয়ে নেওয়ার জন্য আপনাকে শুধু টিমওয়ার্ক জোরদার করলেই হবে না, ব্যক্তিগত সাফল্যও বাড়াতে হবে।
২. অনিয়মিত কার্যক্রম
৯টা-৫টা কিংবা সকাল-বিকাল অফিস করার মধ্যে নতুন কিছু নেই। কিন্তু আপনি কলিগ, সুপারভাইজর কিংবা সিনিয়রদের ক্রমাগত মূল্যায়নের মুখোমুখি পড়ছেন। প্রতি মুহূর্তে আপনার কার্যক্রম সবাই মনিটর করছে এবং এখানে কাজের ক্ষেত্রে পারফর্মেন্স খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি অন্যদের আশা অনুযায়ী কাজ করতে না পারেন তাহলে দ্রুত আপনার অবস্থার অবনতি হবে।
সব সময় একই ধাঁচের পারফর্মেন্স বজায় রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যারা এ কাজে ছন্দপতনের শিকার হন, তারা উন্নতির সোপান থেকে বেরিয়ে যান। তবে ক্রমাগত ভালো কাজ করা অনেক সময় সম্ভব হয় না। এক্ষেত্রে কাজের পরিবেশ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
৩. সুনামে বিশৃঙ্ক্ষলা
আপনার কাজের পরিস্থিতির সুনামই চাকরির উন্নতির মূল সূত্র। অধিকাংশ মানুষই এ বিষয়টিতে পর্যাপ্ত নজর দেন না যে, সুনাম কীভাবে অর্জন করতে হয় এবং কীভাবে এটি ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। কর্মক্ষেত্রে সুনাম ব্যবস্থাপনা অন্যতম একটি অলিখিত আইন। এতে কর্মী হিসেবে আপনি কতোটা ভালো তার চেয়ে অন্যরা আপনাকে কতোটা মূল্যবান বলে মনে করে, তাও প্রকাশ পায়।
আপনি একজন ভালো কর্মী মানেই এই নয় যে, আপনি একজন ভালো নেতা। ভালো কর্মীরা শুধু ভালোভাবে কাজই করেন না, তারা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রভাবক ও নানা বিষয়ে খবর রাখেন। তারা প্রখর বুদ্ধিসম্পন্ন হন এবং আশপাশের মানুষ সম্বন্ধে খবর রাখেন।
৪. ভুল মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক
কর্মক্ষেত্র সব সময় বহু গোপন বিষয় ও লুকানো ফাঁদ থাকে। এ ধরনের ফাঁদে আটকে পড়লে তা ক্যারিয়ারের জন্য ক্ষতিকর হয়। তবে ছোটখাট ফাঁদে পড়লে তা অনেকের জন্য শিক্ষাস্বরূপ কাজ করবে এবং ভবিষ্যতের বিপদ এড়াতে সতর্ক হওয়া যায়।
কর্মস্থলের আশপাশের মানুষ সম্বন্ধে সতর্ক থাকা এজন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি শিক্ষা । কার সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা করতে হবে এবং কাকে এড়িয়ে চলতে হবে এ বিষয়টিও শিখে নেয় বুদ্ধিমান পেশাজীবীরা।

সুত্রঃসামহোয়্যার ইন ব্লগ ৩০ শে এপ্রিল, ২০১৪

[x]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *