এমপিও শিক্ষকদের জানুয়ারি মাসের বেতন বিল প্রস্তুত হয়নি

DSHE- 250এমপিওভুক্ত প্রায় ৫ লাখ শিক্ষক-কর্মচারীর জানুয়ারি মাসের বেতন বিল এখনও প্রস্তুত হয়নি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা দৈনিকশিক্ষাডটকমকে নিশ্চিত করেছেন যে, বেতন বিল প্রস্তুত হয়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পরিচালক বলেন, ডিসেম্বর মাসের বেতনের চেক ছাড় হয়েছিল ২৮ ডিসেম্বর। আর বিল প্রস্তুত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছিল ২৪ ডিসেম্বর। কিন্তু জানুয়ারি মাসের বিলের ক্ষেত্রে দেরি হয়েছে। কাল ৩১ জানুয়ারি হয়তো বিল প্রস্তুত করা হতে পারে।

বিল প্রস্তুতে বিলম্বের কারণ জানতে চাইলে ইনিয়ে-বিনিয়ে একজন কর্মকর্তা বলেন, সবাই বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা নিয়ে মাউশি অধিদপ্তরের কর্তারা বুধ ও বৃহস্পতিবার ব্যস্ত ছিলেন রাজশাহীতে। আরও দুএকদিন ঢাকার বাইরে এই প্রতিযোগীতা নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন তারা। সবাই সোমবার অফিস করতে পারবেন। চেষ্টা করা হচ্ছে বাসায় বিল পাঠিয়ে সই যোগাড় করার।

মাউশির সকল কর্মকর্তা বি সি এস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারভুক্ত সরকারি কলেজ, মাদ্রাসা ও স্কুল শিক্ষক। দেশের শতকরা ৯৭ ভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষক-কর্মচারী বেসরকারি।

বেসরকারি শিক্ষক নেতারা চান বিধিমালা সংশোধন করে মাউশির মহাপরিচালকসহ সকল এমপিওর পদে বেসরকারি সফল অধ্যক্ষ ও প্রধানশিক্ষকদের নিয়োগ দেওয়া হোক। যেমন নটরডেম কলেজ, হলিক্রস কলেজ ইত্যাদি সফল প্রতিষ্ঠান প্রধানদের এসব পদে বসানো হোক।

সাধারণত বেতনের চেক ছাড়ের পরও প্রায় ২ সপ্তাহ পর বেতন তুলতে পারেন এমপিও শিক্ষকরা। ব্যাংক কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠান প্রধানদের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত গড়ে ওঠা অনৈতিক সিন্ডিকেটের কারণে এই দেরি করানো হয় বলে দৈনিকশিক্ষার অনুসন্ধানে জানা  যায়। প্রতিষ্ঠান প্রধানরা বেতন বিল দেরিতে তৈরি করেন ব্যাংক কর্মকর্তাদের ইঙ্গিতে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। আবার ব্যাংকের ক্যাশিয়াররা শিক্ষকদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেন না বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দৈনিকশিক্ষা দীর্ঘদিন যাবত চেষ্টা করে আসছেন যাতে বেসরকারি শিক্ষকরাও সরকারি শিক্ষকদের মতোই প্রতিমাসের ১ তারিখে বেতন হাতে পান।

প্রতি মাসে সরকারের প্রায় ৫০০ কোটি টাকা এমপিও শিক্ষকদের বেতন-ভাতার জন্য দিয়ে থাকেন। এই তরল টাকা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ হাতে রেখে সুবিধা ভোগ করেন।

জানুয়ারি মাসের বেতন পুরোনো স্কেলেই হচ্ছে বলে দৈনিকশিক্ষাডটকমকে নিশ্চিত করেছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল অফিসাররা।

[x]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *